Home / How To / কম্পিউটার অন করলেই অফ যাচ্ছে? সমাধান দেখুন

কম্পিউটার অন করলেই অফ যাচ্ছে? সমাধান দেখুন

বর্তমানে ২০২১ সালে কম্পিউটার ব্যাবহার কারী প্রায় ৯৫ ভাগ মানুষ যে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে এবং হচ্ছে তা হলো কম্পিউটার অন করলে সাথে সাথেই কিংবা কিচ্ছুক্ষন চালু থেকে অফ হয়ে যাওয়া। ধরুন আপনি জরুরী একটি কাজ এর জন্য কম্পিউটার অন করলেন এবং সে সময় ই কম্পিউটার টি অফ হয়ে গেলো কেমন লাগবে তখন..? নিশ্চই খুব অসহনীয় ব্যাপার হবে। আজ সে ব্যাপারেই খুলে বিস্তারিত বলবো এবং সম্ভাব্য সমাধান ও দিবো তো চলুন শুরু করা যাক

কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপ এর এই সমস্যার প্রধান কারণ আমাদের দেশের আবহাওয়া। মূলত কম্পিউটার এর পারটস গুলি যেভাবে বানানো হয় তা আমাদের দেশের তাপমাত্রা এর সংগে মানানসই নয়। উচ্চ তাপমাত্রার সংগে সামঞ্জস্য বজিয়ে রাখতে আমাদের শখের কম্পিউটার টি হিমশিম খেয়ে যায়। ফলবশত নানান সমস্যা দেখা দেয় আমাদের কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপ এ।

্যাম ফেইলুয়ার

আলোচিত এই সমস্যার মুল কালপ্রিট হয়ে দাঁড়ায় র্যাম। র্যাম হচ্ছে এমন একটি জিনিস যা কম্পিউটার এর স্পিড,চলন ক্ষমতা ও নানাবিধ জরুরী কাজের জন্য প্রধান একটি পারট। অতি পুরোনো কিংবা অধিক হিয় এর কারণে র্যাম এর চিপসেট গুলি নাজুক হয়ে পড়ে যার কারণে পর্যাপ্ত পাওয়া র্যাম থেকে মাদারবোর্ড এ পৌছাতে পারে না যার ফলে বারবার কম্পিউটার শাট ডাউন হতে থাকে

প্রসেসর পিন ব্রেক

খেয়াল করলে দেখবেন প্রসেসর এর সংগে মাদারবোর্ড এর কোনো অয়ার কানেকশন নেই এটি সম্পূর্ণ অয়ারলেস ভাবে কাজ করে তবে প্রসেসর এর নীচে কিছু সোনালি রঙ এর চিপসেট থাকে যেগুলি দারাই মূলত প্রসেসর এর সংগে মাদারবোর্ড কানেক্টিভিটি আদান প্রদান করে থাকে। তাই ওই চিপসেট এর কোনো একটি পিন ব্রেক হলে অর্থাৎ ভেংগে গেলে কম্পিউটার চলাচল এ নানাবিধ সমস্যা সংগঠিত হয়।

সস্তা পাওয়ার সাপ্লাই

৭০ ভাগ মানুষ কম্পিউটার বিল্ড আপ করতে গিয়ে বাকি সব কিছু দামী দামী কিনলেও পাওয়ার সাপ্লাই এ কারপণ্যতা করে আবার দোকানদার রাও চালাকি করে কমদামী চায়না পাওয়ার সাপ্লাই দেয় নিজেদের লাভ এর জন্য। আপনাকে ভেবে দেখতে হবে যে আপনার কম্পিউটার টি মূলত চলবেই বিদ্যুৎ এর উপর আর সেই বিদ্যুৎ আসবে পাওয়ার সাপ্লাই এর মাধ্যমে পাওয়ার সাপ্লাই যদি ভালো না হয় তবে শুধু বন্ধ হয়ে যাওয়া নয় আপনার পুরো মাদারবোর্ড সেটাপ টিতে শরট সারকিট হয়ে কম্পিউটার অচল হয়ে যেতে পারমানেন্ট ভাবে। তাই পাওয়ার সাপ্লাই এ অবশ্যই খুব বেশী খেয়াল রাখতে হবে।

থারমাল পেস্ট

প্রসেসর ওভার হিটিং এর কারণে মাদারবোর্ড এ অনেক প্রবলেম হয় যার কারণে কম্পিউটার এ নানাবিধ খুটিনাটি সমস্যা প্রথমে দেখে দেয় এবং পরে বড় একটি ঘটনা সামনে আসে। কিন্তু মাত্র ৫০-৬০ টাকাত বিনিময় এই সমস্যার সমাধান করতে পারেন আপনি ঘরে বসেই। কম্পিউটার পারটস এর দোকান থেকে ৫০ টাকা দিয়ে একটি থারমাল লিকুইড পেস্ট এনে কিছুটা পেস্ট প্রসেসর এর উপর লাগিয়ে দিলেই প্রসেসর ওভার হিটিং ইস্যুর সমাধান হয়ে যাবে।

সিপিউ কুলার

প্রথমেই যেটা বলেছিলাম যে অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের দেশের তাপমাত্রা মাত্রাতিরিক্ত হওয়ার কারণে কম্পিউটার পারটস এর সহনশীলতা বজায় থাকে না যার ফলে আমাদের দেশে কম্পিউটার পারটস এ এত সমস্যা। এই সমস্যার সমাধান এ বাজারে অনেক রকম এর সিপিউ কুলার পাওয়া যায়। সিপিউ কুলার কাজ হচ্ছে কম্পিউটার কে ঠান্ডা রাখা। হিটিং ইস্যু কে দূর করে কম্পিউটার কে রাখে ফ্রেশ।

ক্লিনিং

যেকোনো ইলেকট্রনিক প্রডাক্ট এর পারটস ক্লিন না করলে ময়লা জমার কারণে নানাবিধ সমস্যার সমাধান হয়, এমন কি পিপড়া জমে নানা রকম প্রয়োজনীয় অয়ার কেটে নস্ট করে দেয়। তাই নিজের শখের কম্পিউটার টি নিয়মিত পরিস্কার করে রাখতে হবে।

আজ এ পর্যন্তই আশা করি উপরোক্ত সাজেশন গুলি ফলো করলে এই সমস্যা থেকে সমাধান পাবেন কিংবা প্রতিহত করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.