Home / How To / এডসেন্স এর এড লিমিট ? সমাধান দেখুন

এডসেন্স এর এড লিমিট ? সমাধান দেখুন

আপনার যদি একটি ওয়েব সাইট থাকে তবে এডসেন্স এর সম্পর্কে অবশ্যই আপনি জানেন। এডসেন্স হচ্ছে ওয়েব সাইট মালিক দের জন্য সোনার হরিন এর মতন। কিন্তু এই সোনার হরিন কে পাওয়া যত কস্ট সাধ্য তেমনি পাওয়ার পর বেধে রাখা তার থেকেও বেশী কঠিন এ যেনো ঠিক সেই প্রবাদ বাক্যের মত, সাধীনতা পাওয়ার চেয়ে সাধীনতা রক্ষা করা কঠিন।

আমাদের দেশ থেকে এডসেন্স এপ্রুভাল পেতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয় প্রায় সবাই কে। সেই এডসেন্স পাওয়ার পর যথাযথ ভাবে রক্ষনাবেক্ষন করার উপায় না জানলে সে মুখ ঘুরিয়ে অন্য দিকে হাটা দিবে। এম্নিতেই আমাদের দেশের ওয়েব কন্টেন্ট ক্রিয়েটর দের কথা বলতে গেলে কপিবাজ কমিউনিটি সবার উপরে উঠে আসে। কপি কন্টেন্ট দিয়ে এডসেন্স এপ্রুভাল করিয়ে করিয়ে এখন বাংলাদেশ কে গুগল এর ব্লাক লিস্টে ফেলে দেয়ার ক্রম হয়েছে।

এডস লিমিট এর প্রবলেম এ পড়েনি এমন পাবলিশার পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ আছে। কেউ কেউ ১ মাস কেউ ৩ মাস কেউ বছর আর কেউ তো পারমানেন্ট ভাবেই চিরদিনের জন্য। তো আর কথা না বাড়িয়ে এখন আসি সলুশন এর দিকে।

এডস লিমিট কেনো হয় এটা আগে জানা জরুরী কারণ সমস্যার সমাধান করতে গেলে সমস্যা কোথায় কেনো কিভাবে হচ্ছে এটা খুজে বের করা টা জরূরী।

কন্টেন্ট – এডসেন্স এর প্রথম ও প্রধান শর্ত হচ্ছে আপনার কন্টেন্ট সব ইউনিক হতে হবে কপি করা কন্টেন্ট দিয়ে এডসেন্স চালানো সম্বব না। কন্টেন্ট এর ভ্যালু থাকতে হবে হ য ব ল লিখে রাখলেই কন্টেন্ট হয়ে যায় না। লেখার মাধুর্য বজিয়ে রেখে তবেই আরটিকেল পাবলিশ করতে হবে

ইমেজ – আরটিকেল এর সংগে বা ওয়েব সাইটে ব্যবহারিক সকল ইমেজ বা ছবি হতে হবে কপিরাইট ফ্রি, চাইলে ফেয়ার ইউজ বা ইজার কমন রাইটস এর আওতায় পড়ে এমন ছবি ব্যবহার করুন

সাইট ডিজাইন – আপ্নার ওয়েব সাইট এর ডিজাইন এর উপর এডসেন্স এর খুব একটা প্রভাব না পড়লেও রিস্ক নেওয়ার কি দরকার এত কস্ট করে বানাবেন একটা ওয়েব সাইট তো সেটার ডিজাইন টা যদি সুন্দর না হয় তবে তো গরুর খাটনি হয়ে গেলো..!!

রেসপন্সিভ থিম – এডসেন্স এর এডস ক্যাটাগরিতে ৯০% এডস ই রেস্পন্সিভ তাই আপনার ওয়েব সাইটের থিম টি অবশ্যই রেসপন্সিভ হতে হবে নতুন অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

ভিজিটর রেসপন্স – এডসেন্স এ ভিজিটর ছাড়া তো আর আয় হবে না তাইনা কিন্তু ভিজিটর কোথা থেকে আসছে কিভাবে এডস এ তারা রেস্পন্স করছে এটা মেইনটেইন করা জরুরি।

সোশাল ট্রাফিক – সোশাল মিডিয়া থেকে ট্রাফিক খুব বেশী পরিমান হলে এডসেন্স এর লিমিট হয়ার চান্স ১০০% কারণ সোশাল মিডিয়া থেকে আসা ট্রাফিক এডস এ রেস্পন্স না করলেও ক্লিক করতে ভুল করেনা। সিটিয়ার বেড়ে গিয়ে এডসেন্স এর আকাশ ভরা তারা দেখিয়ে দেয় গুগল।

গুগল কনভার্ট ট্রাফিক – সবশেসস এ মক্ষম অস্ত্র যা এডস লিমিট সমস্যার জন্য একদম পাচক এর মতন কাজ করে তা হলো গুগল কনভার্ট ট্রাফিক, শোশাল মিডিয়া ট্রাফিক বা অন্য যেকোনো ভাবে ট্রাফিক কে গুগলের মাধ্যমে কনভার্ট করে ওয়েব সাইটে প্রবেশ করিয়ে ভালো অংকের অর্থ উপার্জন এর পাশাপাশি এডস লিমিট এর রিস্ক থেকেও বাচা যায়।

আজ এ পর্যন্তই কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না লেখা টি আপনার কাছে কেমন লেগেছে ও অন্য কোনো প্রশ্ন আছে কিনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.